1. qawmivoiceb@gmail.com : Mahbub :
রাসূলের প্রতি আমাদের ভালোবাসা | কওমী ভয়েস
সোমবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২১, ১০:১০ পূর্বাহ্ন

রাসূলের প্রতি আমাদের ভালোবাসা

মুফতী মাহবুব
  • আপডেট সময়: সোমবার, ৪ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৭০ জন দেখা

আমাদের রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের প্রতি ভালোবাসা শুধু আবেগের বিষয় নয় বরং একজন ঈমানদারের জন্য দীন ও ঈমান-আকিদার সঙ্গে সম্পর্কিত। তিনি হলেন বিশ্বমানবতার জন্য জীবনের সব কাজের অনুকরণীয় ও অনুসরণীয় আদর্শ। কুরআনুল কারিমের অনেক জায়গায় বিষয়টি সুস্পষ্টভাবে তুলে ধরা হয়েছে।

হযরত আবু বকর রাযি. -এর বাবা আবু কোহাফা তখনও মুসলমান হননি। একবাদ তিনি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ব্যাপারে কিছু অশালীন কথা বললেন। শুনে হযরত আবু বকর রাযি. খুব রেগে গেলেন। রাগের চোটে তিনি তাকে জোরে চড় মেরে বসলেন। আবু কোহাফা নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের কাছে গিয়ে নালিশ করলো। রাসূল আসল ঘটনা জানার জন্য আবু বকরকে জিজ্ঞেস করলেন, ‘আপনি এমনটি কোনো করলেন?’ তিনি বললেন, ‘রাসূল! সেসময় আমার কাছে তলোয়ার ছিলো না। নয়তো আমি তার গর্দান উড়িয়ে দিতাম।’ এব্যাপারে হযরত জিবরাইল আ. কুরআনের এ আয়াত নিয়ে আসেন-
“আল্লাহ ও পরকালের ওপর ঈমান রাখে এমন লোকদের আল্লাহ ও রাসূলের শত্রুদের ভালোবাসে এমন পাবেন না। যদিও তারা তাদের বাবা-মা, সন্তান-সন্ততি, ভাইবোন বা পরিবার-পরিজন হয়। তারাই সেসব লোক, যাদের মনে আল্লাহ ঈমান লিখে দিয়েছেন। তাদেরকে শক্তিশালী করেছেন জিবরাইল দিয়ে। আল্লাহ তাদের এমন জান্নাতে ঢোকাবেন, যার তলা দিয়ে ঝর্ণা বয়ে যাবে। তাঁরা সেখানে চিরদিন থাকবে। আল্লাহ তাঁদের ওপর খুশি। তাঁরাও আল্লাহর ওপর খুশি। তাঁরাই আল্লাহর দল। জেনে রেখো! আল্লাহর দলই সফল।

ওপর জায়গায় মহান আল্লাহ বলেন-
‘যারা আল্লাহ ও শেষ দিবসের আশা রাখে এবং আল্লাহকে অধিক স্মরণ করে, তাদের জন্যে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের জীবনের মধ্যে রয়েছে উত্তম নমুনা।’ -সুরা আহজাব : আয়াত ২১

বিশ্বনবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ওই সব মানুষের জন্য উত্তম নমুনা, যারা আল্লাহকে বিশ্বাস করে এবং শেষ দিনের প্রতি বিশ্বাস রাখে। বিশ্বনবির প্রতি ভালোবাসার নমুনা কেমন হবে, অন্য আয়াতে আল্লাহ তাআলা তা এভাবে তুলে ধরেছেন-

– ‘বলুন, তোমাদের পিতা, তোমাদের পুত্র, তোমাদের ভাই, তোমাদের স্ত্রী, তোমাদের আত্মীয়-স্বজন এবং ওই সম্পদ, যা তোমরা উপার্জন কর এবং ব্যবসা-বাণিজ্য যার ক্ষতির আশঙ্কা তোমরা কর এবং ঐ ঘর-বাড়ি, যাতে তোমরা বসবাস কর, যদি তোমাদের কাছে আল্লাহর চেয়ে, তাঁর রাসুলের চেয়ে এবং তাঁর রাস্তায় জিহাদের চেয়ে অধিক প্রিয় হয়ে থাকে তাহলে অপেক্ষা কর আল্লাহর বিধান আসা পর্যন্ত। আল্লাহ সত্যত্যাগী সম্প্রদায়কে সৎপথ প্রদর্শন করেন না।’ সুরা তাওবাহ : আয়াত ২৪

সে কারণেই বিশ্বনবির প্রতি উম্মতের ভালোবাসা হবে এমন যে, তিনি যা নির্দেশ দেন তা বাস্তবায়ন করা। সে মতে জীবন পরিচালনা করা। যা থেকে বিরত থাকতে বলেন, তা মেনে নেয়া। আল্লাহ তাআলা বলেন-

‘রাসুলুল্লাহ তোমাদেরকে যা দেন তা গ্রহণ কর আর যা নিষেধ করেন তা থেকে বিরত থাক। আল্লাহকে ভয় কর। নিশ্চয়ই আল্লাহর শাস্তি অত্যন্ত কঠিন।’ -সুরা হাশর : আয়াত ৭

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের আদেশ-নিষেদ মেনে নেয়াও ঈমানের অন্যতম নিদর্শন। কেননা তাঁর নির্দেশ মেনেই উম্মতে মুহাম্মাদি ব্যক্তিগত, পারিবারিক, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় জীবনে বিচার-ফয়সালা করবে। সে ঘোষণাও এসেছে কুরআনে-

‘মুমিনদের উক্তি তো এই-যখন তাদের মধ্যে ফয়সালা করার জন্য আল্লাহ ও তাঁর রাসুলের দিকে আহবান করা হয় তখন তারা বলে, আমরা শ্রবণ করলাম এবং আনুগত্য করলাম। আর ওরাই তো সফলকাম।’ -সুরা নুর : আয়াত ৫১

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে তার আদর্শ পরিপুর্নভাবে নিজেদের জীবনে ধারণ করার মাধ্যমে দুনিয়া ও পরকালে সফল হওয়ার তাওফিক দান করুন। আমীন। সুম্মা আমীন।

 

লেখক, মুহাদ্দিস- মাদরাসায়ে হালিমাতুস সাদিয়া রাযি. ঢাকা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এজাতীয় আরও পড়ুন
©২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত| এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।
ডিজাইন কওমী ভয়েস