1. qawmivoiceb@gmail.com : Mahbub :
মানবজীবনকে ধ্বংসের ৭ গুনাহ | কওমী ভয়েস

মানবজীবনকে ধ্বংসের ৭ গুনাহ

  • আপডেট সময়: সোমবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৪৬ জন দেখাছেন

সূরা নিসা কুরআনুল কারীমের একটি অন্যতম সূরা। সেখানে মহান আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেন, যে সকল বড় গুনাহ সম্পর্কে তোমাদের নিষেধ করা হয়েছে যদি তোমরা সে সব বড় গুনাহ থেকে বেচে থাকতে পারো, তবে আমি তোমাদের ত্রুটি-বিচ্যুতিগুলো ক্ষমা করে দিবো এবং সম্মানজনক স্থানে তোমাদের প্রবেশ করাবো।-সূরা নিসা:৩১

পবিত্র হাদীস শরীফের বর্ণনা অনুসারে, সাতটি বড় গুনাহ বা গুরুতর পাপ থেকে বিরত থাকতে আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমাদের আদেশ করেছেন। এই সাতটি পাপ এত গুরুতর, যা মানবজীবনকে চরম বিশৃঙ্খলা ও ধ্বংসের দিকে ধাবিত করে। নিম্নে তা উল্লেখ করা হলো:

এক. শিরক করা: শিরক করা তথা আল্লাহর সাথে অন্য কোন কিছুকে অংশীদার সাব্যস্ত করা বা তার ইবাদত করা আল্লাহর অধিকারে হস্তক্ষেপের শামিল। এর মাধ্যমে একজন ব্যক্তি আল্লাহর অনুগ্রহ ও দয়া থেকে বঞ্চিত হয় এবং তাওবাহ না করলে মৃত্যুর পর অনন্তকালের জন্য জাহান্নামী সাব্যস্ত হয়।

দুই. সুদ খাওয়া: কোন সমাজের অর্থনৈতিক মেরুদণ্ড ধ্বংস করতে হলে সুদের চেয়ে কার্যকর অন্য কিছুই নেই। সুদ সমাজের অর্থনৈতিক ভারসাম্যকে বিনষ্ট করে এবং সমাজের সকল সম্পদ কিছু মানুষের মাঝে কুক্ষিগত করে ধনী-গরীবের মাঝে আকাশ-যমিন বৈষম্য তৈরিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

তিন. হত্যা করা: ইসলামে স্বীকৃত কারণসমূহ ছাড়া অন্যায়ভাবে কাউকে খুন করা অপর একটি গুরুতর পাপ। এর মাধ্যমে মানুষের আল্লাহ প্রদত্ত বাঁচার অধিকার চরমভাবে খর্ব হয়, সমাজের শান্তি ও নিরাপত্তা চরমভাবে বিনষ্ট হয় এবং মানুষে-মানুষে বিভেদের প্রাচীর তৈরী করে।

চার. এতিমের সম্পদ আত্মসাৎ করা: এতিমের সম্পদ আত্মসাৎ সমাজের এতিম অনাথ শিশুদের নিঃস্ব করে তোলে এবং জীবনযাত্রার প্রয়োজনে তারা তখন বিভিন্ন অপরাধে লিপ্ত হয়ে পড়ে।

পাঁচ. সতী–স্বাধ্বী নারীর নামে অপবাদ দেওয়া: নিজেদের সতীত্বকে রক্ষা করে চলা নারীদের নামেই যদি মিথ্যা অভিযোগ বা অপবাদ আরোপ করা হয় তবে সমাজের অন্যান্য লোকদের নামে অভিযোগ করা তো কোন বিষয়ই না। ইসলামে এ অপরাধ মহা অন্যায়। এর মাধ্যমে মানুষের সসম্মানে সুন্দরভাবে বাঁচার অধিকার খর্ব হয়। সমাজে গীবত ও চোগলখুরীর দরজা উন্মুক্ত হয় এবং মানুষের মধ্যকার সম্পর্ক ও সামাজিক শান্তি বিনষ্ট হয়।

ছয়. জাদুবিদ্যার চর্চা করা: জাদুবিদ্যার চর্চা মানুষের মাঝে সম্পর্কের ক্ষেত্রে জটিলতা তৈরি করে এবং মানুষের মধ্যকার সম্পর্কসমূহ বিনষ্ট হয়। আর এটা কুফরেরও একটি প্রকার।

সাত. যুদ্ধক্ষেত্র থেকে পলায়ন করা: নিজ ভূমি রক্ষায় যুদ্ধ থেকে পলায়ন সহযোদ্ধাদের উদ্যম কমিয়ে দেয়। কোন বাহিনীর কিছু সদস্য যদি যুদ্ধক্ষেত্র থেকে পলায়ন করে, তবে বাহিনীর যুদ্ধ করার মনোবলই ভেঙে পড়ে। এটাও একটি কবিরা গুনাহ।- সহীহ বুখারী

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এজাতীয় আরও পড়ুন
©২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত| এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।
ডিজাইন: কওমী ভয়েস