1. qawmivoiceb@gmail.com : Mahbub :
পুরুষের জন্য স্বর্ণ ব্যবহার করা জায়েজ? | কওমী ভয়েস
শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ০৪:২১ পূর্বাহ্ন

পুরুষের জন্য স্বর্ণ ব্যবহার করা জায়েজ?

Reporter Name
  • আপডেট সময়: মঙ্গলবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১১৬ জন দেখাছেন

জিজ্ঞাসাঃ আমরা জানি যে, পুরুষেরা স্বর্ণ ব্যবহার করতে পারবে না।  তবে অনেকে বলে যে ৪ আনা বা অল্প পরিমান ব্যবহার করতে পারবে। কোনটা সঠিক জানালে উপকৃত হবো।

সমাধানঃ অলংকার মানুষের রুচিবোধ, ব্যক্তিত্ববোধ, আর্থিক অবস্থা ও জীবনাচারের প্রকাশ ঘটায়। ফ্যাশন ও মডেলিংয়ের এ যুগে অলংকারের নিত্যনতুন ব্যবহারবিধি, রূপ ও পদ্ধতি প্রকাশিত হচ্ছে।

ইসলাম বরাবরই সৌন্দর্যবোধকে পছন্দ করে। তবে সব বিষয়েই ইসলামের সুনির্দিষ্ট নীতিমালা রয়েছে। এ বিষয়টিও এর ব্যতিক্রম নয়। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ইরশাদ করেছেন, ‘নারী ও পুরুষের জন্য সোনা-রুপার পাত্র আর পুরুষের জন্য সোনার আংটি ও রেশমজাত কাপড় ব্যবহার করা হারাম। আর নারীদের জন্য এগুলো ব্যবহার করা মুবাহ। তবে সোনা-রুপা ও রেশমের অনধিক চার আঙুল পরিমাণ পাড় ও আঁচল বা অনুরূপ কিছু পুরুষের জন্য বৈধ।’-সহীহ মুসলিম, অধ্যায় ৩৮, পোশাক ও সাজসজ্জা, হাদীস : ৫২১৮

হাদীস শরীফে পুরুষদের জন্য স্বর্ণ ব্যবহারে স্পষ্ট নিষেধাজ্ঞা এসেছে। সে জন্য পুরুষদের স্বর্ণ ব্যবহার করা হারাম। চাই তা স্বর্ণের আংটি  বা সোনার অন্য যে কোন অলংকারই হোক না কেন। তা ব্যবহার পুরুষের জন্য একেবারেই হারাম।

হযরত আব্দুল্লাহ বিন আব্বাস রাযি. থেকে বর্ণিত।

عَنْ عَبْدِ اللهِ بْنِ عَبَّاسٍ، أَنَّ رَسُولَ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ رَأَى خَاتَمًا مِنْ ذَهَبٍ فِي يَدِ رَجُلٍ، فَنَزَعَهُ فَطَرَحَهُ، وَقَالَ: «يَعْمِدُ أَحَدُكُمْ إِلَى جَمْرَةٍ مِنْ نَارٍ فَيَجْعَلُهَا فِي يَدِهِ»، فَقِيلَ لِلرَّجُلِ بَعْدَ مَا ذَهَبَ رَسُولُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: خُذْ خَاتِمَكَ انْتَفِعْ بِهِ، قَالَ: لَا وَاللهِ، لَا آخُذُهُ أَبَدًا وَقَدْ طَرَحَهُ رَسُولُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ

নিশ্চয় রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম একদা এক ব্যক্তির হাতে স্বর্ণের আংটি দেখতে পেলেন। তখন তিনি তা খুলে ছুড়ে ফেলে দিলেন। বললেন, তোমাদের কেউ কেউ জাহান্নামের জলন্ত অঙ্গার নিয়ে হাতে পরিধান করে। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের উক্ত স্থান থেকে প্রস্থানের পর উক্ত ব্যক্তিকে বলা হল, উক্ত আংটিটি নিয়ে কাজে লাগাও। সাহাবাটি বললেন, না, আল্লাহর কসম! যে বস্তু রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ফেলে দিয়েছেন তা আমি কখনোই গ্রহণ করবো না।-সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-২০৯০

হযরত উমামা রাযি. থেকে বর্ণিত। রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন,
عَنْ أَبِي أُمَامَةَ، أَنَّهُ سَمِعَ رَسُولَ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ يَقُولُ: ” مَنْ كَانَ يُؤْمِنُ بِاللهِ وَالْيَوْمِ الْآخِرِ فَلَا يَلْبَسْ حَرِيرًا وَلَا ذَهَبًا “

যে ব্যক্তি আল্লাহ তাআলা উপর এবং আখেরাতের উপর বিশ্বাস রাখে, সে যেন রেশমী কাপড় এবং স্বর্ণ ব্যবহার না করে। -মুসনাদে আহমাদ, হাদীস নং-২২২৪৮

হযরত আব্দুল্লাহ বিন আমর রাযি. থেকে বর্ণিত। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন,
قَالَ عَبْدُ اللهِ بْنُ عَمْرٍو: قَالَ رَسُولُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: ” مَنْ لَبِسَ الذَّهَبَ مِنْ أُمَّتِي، فَمَاتَ وَهُوَ يَلْبَسُهُ لَمْ يَلْبَسْ مِنْ ذَهَبِ الْجَنَّةِ

আমার উম্মতের মাঝে যে ব্যক্তি স্বর্ণ পরিহিত অব্স্থায় মারা যায়, তাকে জান্নাতের স্বর্ণ পরিধান করানো হবে না।-মুসনাদে আহমাদ, হাদীস নং-৬৯৪৭

হযরত আবূ সাঈদ খুদরী রাযি. থেকে বর্ণিত।
أَنَّ أَبَا سَعِيدٍ الْخُدْرِيَّ حَدَّثَهُ، أَنَّ رَجُلًا قَدِمَ مِنْ نَجْرَانَ إِلَى رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ وَعَلَيْهِ خَاتَمٌ مِنْ ذَهَبٍ، فَأَعْرَضَ عَنْهُ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ وَقَالَ: «إِنَّكَ جِئْتَنِي وَفِي يَدِكَ جَمْرَةٌ مِنْ نَارٍ

নাজরান থেকে এক ব্যক্তি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের কাছে আসল। তার হাতে ছিল স্বর্ণের আংটি। তখন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তার থেকে মুখ ফিরিয়ে নিলেন এবং বললেন, নিশ্চয় তুমি জাহান্নামের জলন্ত অঙ্গার তোমার হাতে নিয়ে এসেছো।-সুনানে নাসায়ী, হাদীস নং-৫১৮৮, মুসনাদে আহমাদ, হাদীস নং-১১১০৯, সহীহ ইবনে হিব্বান, হাদীস নং-৫৪৮৯

হযরত আবূ হুরায়রা রাযি. থেকে বর্ণিত।
عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ رَضِيَ اللَّهُ عَنْهُ، عَنِ النَّبِيِّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ أَنَّهُ «نَهَى عَنْ خَاتَمِ الذَّهَبِ»

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমাদের স্বর্ণের আংটি ব্যবহার করতে নিষেধ করছেন।-সহীহ বুখারী, হাদীস নং-৫৮৬৪

হযরত আব্দুল্লাহ বিন আমর রাযি. থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন,
عَنْ عَبْدِ اللَّهِ بْنِ عُمَرَ، رَضِيَ اللَّهُ عَنْهُمَا قَالَ: كَانَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ يَلْبَسُ خَاتَمًا مِنْ ذَهَبٍ، فَنَبَذَهُ فَقَالَ: «لاَ أَلْبَسُهُ أَبَدًا» فَنَبَذَ النَّاسُ خَوَاتِيمَهُمْ

একদা নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম স্বর্ণের আংটি পরিধান করলেন। তারপর তার খুলে ফেলে দিলেন, এবং বললেন, কখনোই এটি পরিধান করো না। তখন সমস্ত সাহাবাগণ তাদের (স্বর্ণের) আংটি খুলে ফেলে দিলেন।-সহীহ বুখারী, হাদীস নং-৫৮৬৭

হযরত আলী রাযি. থেকে বর্ণিত।
عَلِيٍّ أَنَّ النَّبِيَّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ أَخَذَ حَرِيرًا وَذَهَبًا فَقَالَ هَذَانِ حَرَامَانِ عَلَى ذُكُورِ أُمَّتِي حِلٌّ لِإِنَاثِهِمْ

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম রেশম এবং স্বর্ণ নিলেন, তারপর বললেন, এ দু’টি বস্তু আমার উম্মতের পুরুষের জন্য হারাম কিন্তু নারীদের জন্য জায়েজ। -ফাতহুল বারী-১০/২৯৬, নারীদের রেশম পরিধান করার অধ্যায়

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এজাতীয় আরও পড়ুন
©২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত| এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।
ডিজাইন কওমী ভয়েস