1. qawmivoiceb@gmail.com : Mahbub :
নারীদের চুড়ি ও নাক ফুল পরার বিধান কি? | কওমী ভয়েস
শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ০৩:১০ পূর্বাহ্ন

নারীদের চুড়ি ও নাক ফুল পরার বিধান কি?

ধর্মীয় ডেস্ক
  • আপডেট সময়: বৃহস্পতিবার, ১১ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৩১৯ জন দেখাছেন

নারী বিবাহিত হোক বা অবিবাহিত। ইসলামে নারীদের জন্য হাতে চুরি এবং নাক ফুল এগুলো পড়া জায়েয আছে কিনা?

প্রিয় পাঠক! নারীদের জন্য কানে দুল পরা, নাকে ফুল পরা হাদীস দ্বারা প্রমাণিত আছে। এর মাধ্যমে কান ফুটানোর বিষয়টাও প্রমণিত হয়। নাকে নাকফুল পরা এবং এর জন্য নাক ফুটানো অনেক স্কলার নিকট না জায়েজ। বিষয়টি আরও সহজে বুঝতে দেখুন- নিম্নোক্ত শর্ত সাপেক্ষে বিবাহিত/অবিবাহিত যে কোনো নারীর জন্য চুড়ি ও নাক ফুলসহ যে কোনো অলঙ্কার পরিধান করা জায়েয।

১. উগ্রতার বহিপ্রকাশ ঘটে এমন অলঙ্কার ব্যবহার করা যাবে না।

২. অমুসলিম সংস্কৃতি ও ধর্ম বিশ্বাসের সাথে সম্পৃক্ত অলঙ্কার ব্যবহার করা যাবে না।

৩. প্রাণীর ছবি অঙ্কন করা হয়েছে এমন অলঙ্কার ব্যবহার করা যাবে না। আল্লামা ইবনু কুদামা রহ. বলেন,

ويباح للنساء من حلي الذهب والفضة والجواهر كل ما جرت عادتهن بلبسه

‘নারীদের জন্য সোনা রুপা ও যে কোনো ধাতুর অলঙ্কার (যেমন, হিরা, চুনী, পান্না, রুবী, মার্বেল, মুক্তা ইত্যাদি) যেগুলো তারা সাধারণত পরিধান করে থাকে;  ব্যবহার করা বৈধ।’- আলমুগনী ২/৩২৫

আরব বিশ্বের সর্বোচ্চ ফাতওয়া কমিটিকে নাক ফুল সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলে তাঁরা উত্তর দিয়েছেন,

حكم وضع الزمام في الأنف : يجوز ؛ لأن ثقب الأنف للزينة وليس للإيذاء أو تغيير خلق الله

‘নারীদের জন্য নাকে ফুল পরা জায়েয। নারীর নাক ফোঁড়া হয় সৌন্দর্যের জন্য; নারীকে কষ্ট দেওয়া অথবা আল্লাহর সৃষ্টিকে বিকৃত করার জন্য নয়।’-ফাতাওয়াল লাজনাদ দায়িমা লিল বুহুসিল ইলমিয়্যা ওয়াল ইফতা ২৪/৩৬

হাতে চুড়ি পরা বিষয়ে শরীয়তে কোন প্রকার নিষেধ নেই। নারীদের হাতে চুড়ি হিসেবে কাঁচ, পাথর ও রূপাসহ সব ধরনের অলংকার পরা জায়েজ আছে।

তবে আমাদের দেশের কিছু কিছু এলাকার মহিলাদের মাঝে একথা প্রচলিত রয়েছে- কোনো মেয়ে যদি নাক-কান না ফোঁড়ায় তাহলে কিয়ামতের দিন তার নাক-কানে আগুনের লোহা দিয়ে ছিদ্র করা হবে। কথাটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। অলংকার ব্যবহারের উদ্দেশ্যে মহিলাদের নাক-কান ফোঁড়ানো জায়েয। কিন্তু এটি শরীয়তের কোনো জরুরি হুকুম নয়।

আবার কোন নারী নাক-কান না ফোঁড়ালে তার কোনো গোনাহ হবে না এবং এ কারণে আখেরাতে তাকে শাস্তিও পেতে হবে না।

উল্লেখ্য, বর্তমানে আরো কিছু কিছু অঙ্গে অলঙ্কার ব্যবহার করতে দেখা যায়, যেমনঃ ঠোট, চোখ, নাভী, জিহ্বা; এসব স্থানে অলঙ্কার ব্যবহার করা অপসংস্কৃতি ও উগ্রতার বহিপ্রকাশ; তাই এসব অনুমোদিত নয়।-আযীযুল ফাতাওয়া ৭৭১

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এজাতীয় আরও পড়ুন
©২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত| এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।
ডিজাইন কওমী ভয়েস