1. qawmivoiceb@gmail.com : Mahbub :
কিস্তির মাধ্যমে অধিক মূল্যে পণ্য ক্রয় কি জায়েজ? | কওমী ভয়েস
শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ০৩:০৩ পূর্বাহ্ন

কিস্তির মাধ্যমে অধিক মূল্যে পণ্য ক্রয় কি জায়েজ?

মুফতী মাহবুব
  • আপডেট সময়: রবিবার, ১৭ জানুয়ারী, ২০২১
  • ২০২ জন দেখাছেন

জিজ্ঞাসাঃ আমাদের দেশে আজকাল বিভিন্ন পণ্য কিস্তিতে বেচাকেনার হিড়িক চলছে। আর এ সুযোগে কিছু ব্যাবসায়ী পণ্যের চড়াও মূল্য দিয়ে কিস্তিতে বিক্রি করছে। আর আমরা দেখি লএ পণ্যই নগদে ক্রয় করলে কম মূল্যে পাওয়া যায়। এখন আমার প্রশ্ন কিস্তিতে বেশি টাকা দিয়ে ক্রয় করলে কি সুদ হবে? শরিয়ত কী বলে?

সমাধানঃ নগদ ও বাকি বেচাকেনার মাঝে কমবেশি মূল্য নির্ধারণ করা জায়েজ আছে। তবে এ ক্ষেত্রে কিছু শর্ত আছে। যেমন-
১. প্রত্যেক কিস্তিতে কত টাকা পরিশোধ করবে তা নির্ধারণ করতে হবে।
২. প্রতি কিস্তির তারিখ এবং টাকা পরিশোধের স্থান নির্ধারিত করতে হবে।
৩. “যদি কোন কিস্তির টাকা পরিশোধ না করে, তাহলে ক্রেতার টাকা বাজেয়াপ্ত হয়ে যাবে” এমন শর্ত না থাকতে হবে।
৪. বিক্রিত বস্তুটি ক্রেতার পুরোপুরি আওতাধীন করে দিতে হবে।

উল্লেখ্য, আপনার বর্ণিত প্রশ্নে এখানে অতিরিক্ত টাকা পণ্যের বিপরীতে, অতিরিক্ত টাকা টাকার পরিবর্তে নয়, এ জন্য সুদ হবে না। যদি সুনির্দিষ্ট মূল্য নির্ধারণ করা হয়, তাহলে কিস্তির মাধ্যমে পণ্যের মূল্য পরিশোধ করা ইসলামিক বিশেষজ্ঞরা জায়েজ বলেছেন।

তথ্যসূত্রঃ

নাসায়ি শরীফ, হাদীস নং-৪৫৬৬, মাবসুত ১৩/৮, মাআশী মাসায়েল ৫৩, বাদায়ূস সানাঈ খণ্ড-৫, পৃষ্ঠা-১৮৭, আল বাহরুর রায়েক, খণ্ড-৫, পৃষ্ঠা-২৮০, কিতাবুল ফাতাওয়া, খণ্ড-৫ পৃষ্ঠা-১৯৭, ফিকহী মাকালাত ১/৮২

 

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এজাতীয় আরও পড়ুন
©২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত| এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।
ডিজাইন কওমী ভয়েস