ইসলাম প্রতিদিন

এমন যদি আলেমদের বিয়ে হতো

  Mahbub ১০ জানুয়ারি ২০২২ , ৪:৩৪ পূর্বাহ্ণ প্রিন্ট সংস্করণ

মাওলানা আমিনুল ইসলাম


ছেলের যোগ্যতা তো কম নয়, দাওরায়ে হাদীস, ইফতা, উলুমুল হাদীস, আদব, সব বিভাগেই সুনামের সাথে উত্তীর্ণ হয়েছেন। আর তিনি হেফজ শেষ করেছিলেন তো শৈশবেই । হেফজ পড়ার পর বসে থাকেন নি। রাজধানী ঢাকার ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠানে অত্যন্ত সুনামের সাথে পড়ালেখা চালিয়েছেন। বর্তমানে তিনি একটি প্রতিষ্ঠানে প্রভাষক হিসেবে কর্মরত।

আজ তাঁর বিয়ে। তিনি যেরকম আলেম, তাঁর বিবাহতে উলামায়ে কেরামের আগমন। দেশের বিভিন্ন মাদ্রাসার খ্যাতনামা ওলামায়ে কেরামের উপস্থিতি ছিল।
মাদ্রাসার মুহতামিম, মুহাদ্দিস, শায়খুল হাদীস, ইমাম, খতীব বিভিন্ন শ্রেণীর উলামায়ে কেরাম হাজির হয়ে ছিলেন আজ।

বরের মাথায় সুন্নতি পাগড়ী। বরযাত্রীদের অধিকাংশ যেহেতু আলেম, তাদের মাথায় তো টুপি পাগড়ী আছেই।

গাড়ি গিয়ে থামল মেয়ের বাড়ীর পাশে মসজিদে। মসজিদে জোহরের নামাজ জামাতের সাথে আদায়।

নামাজের পরে মসজিদে জমে জমে বসে গেল সবাই। পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত। সুললিত কন্ঠে একজন হাফেজে কুরআন তেলাওয়াত শোনালেন।
এরপর বিবাহের খুতবার জন্য উঠে দাঁড়ালেন একজন মুহাদ্দিস সাহেব। অনেক সারগর্ভ খুতবা দিলেন। খুতবার পরে মেয়ের বাবাই বিয়ে পড়ালেন।
কোন ঝামেলা নেই। মজলিসে কোন দর কষাকষি নেই। একদম যৌতুকবিহীন এ বিয়ে।

বিয়ের কোন গেট ছিল না। কোন আড়ম্বরপূর্ণ সাজসজ্জা ছিল না।অতিথিদের অভ্যর্থনা জানানোর জন্য কোন বেপর্দা মহিলা বা বালেগা মেয়ে নজরে আসেনি।
আলেমদের ইস্তেকবাল করলেন আলেমরা। অর্থাৎ মেয়ের বাবা- চাচা- মামারা খ্যাতনামা আলেম। তারাই এগিয়ে এলেন রিসিভ করতে।

আলেমগণ একে অপরের সাথে মুসাফাহা, মুয়ানাকা করলেন। একে অপরকে জড়িয়ে ধরলেন। সে যে কি এক ভালবাসার দৃশ্য, না দেখলে বিশ্বাস করা যাবে না।
চোখে পড়ার মত ছিল আজকের এই আলেমের বিয়ের অনুষ্ঠান। যারা দেখেছে, সকলেরই মনে থাকবে।

আলেমের বিয়ে। বর পক্ষ আলেম। মেয়ে পক্ষ আলেম। বিয়েতে সুন্নাত মোতাবেক সব কিছু করার চেষ্টা করা হয়েছে। উভয় পক্ষ আলেম হওয়ায়, সহজ হয়েছে অনেক কিছু।
সচারাচর দেখা যায় না এধরনের বিবাহ। এরকম পরিবেশও পাওয়া মুশকিল। আজকাল তো বিয়ে- শাদীতে সুন্নাত নেই। বিয়েতে এমন পরিবেশ সৃষ্টি করা হয়েছে, সেখানে গোনাহ আর গোনাহ। যত শরীয়তবিরোধী কাজ আছে, সব হচ্ছে বিবাহতে।

এজন্য সতর্ক হওয়া চাই। গোনাহমুক্ত বিবাহ হোক, সুন্নত মোতাবেক হোক সব বিছু। আল্লাহ তাওফিক দিন আমিন।


লেখক : শিক্ষক ও সমাজ বিশ্লেষক