1. qawmivoiceb@gmail.com : Mahbub :
উলঙ্গ হয়ে অজু গোসল জায়েজ কি? | কওমী ভয়েস
বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ০২:০২ পূর্বাহ্ন

উলঙ্গ হয়ে অজু গোসল জায়েজ কি?

Reporter Name
  • আপডেট সময়: বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১০০ জন দেখাছেন

এক হাদীসে এসেছে যে, মুয়াবিয়া বিন হাইদা হতে বর্ণিত।
حدثنا بهز بن حكيم حدثني أبي عن جدي قال قلت : يا رسول الله عوراتنا ما نأتي منها وما نذر ؟ قال احفظ عورتك إلا من زوجتك أو مما ملكت يمينك فقال الرجل يكون مع الرجل ؟ قال إن استطعت أن لا يراها أحد فافعل قلت والرجل يكون خاليا قال فالله أحق أن يستحيا منه

একদা রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন যে, তুমি তোমার বিবি ও তোমার দাসী ছাড়া অপরের নিকট হতে তোমার লজ্জাস্থানকে সর্বদা রক্ষা কর (অর্থাৎ ঢেকে রাখবে)। আমি বললাম-“ইয়া রাসূলাল্লাহ! বলুন! যদি কোন ব্যক্তি নির্জনে একাকী থাকে! (তখনও কি তা ঢেকে রাখতে হবে? প্রয়োজন ছাড়া খোলা নিষিদ্ধ?) তিনি বললেন (হ্যাঁ) আল্লাহ তাআলাকে অধিক লজ্জা করা উচিত।-জামে তিরমিজী, হাদীস নং-২৭৬৯

বাথরুমে উলঙ্গ হয়ে গোসল করা সুন্নাত ও শিষ্টাচার-পরিপন্থী। প্রয়োজন ছাড়া বাথরুমে উলঙ্গ হয়ে গোসল করা উচিত নয়। হাদীসে এ ব্যাপারে অনুৎসাহিত করা হয়েছে। সুতরাং তা পরিহার করা উচিত। তবে গোনাহ হবে মর্মে কোন বক্তব্য আমরা পাইনি।

ফাতাওয়া মাহমুদিয়া (৪/৩৮৭)-তে এসেছে, ‘গোসলখানায় যদি কোনো পর্দাহীনতা না হয় তাহলে উলঙ্গ হয়ে গোসল করা জায়েয আছে। তবে এটা না করাই উত্তম। কেননা শয়তান তখন ধোঁকা দেয়। এটা নিন্দনীয় কাজ।’  সুতরাং এমনটি করা অনুচিত।। কেননা,  হাদীস শরীফে উলঙ্গ হয়ে গোসল করার ব্যাপারে অনুৎসাহিত করা হয়েছে। যেমন এক হাদিসে এসেছে,

سألَهُ ﷺ معاويةُ بنُ حيدَةَ: يا رسولَ اللَّهِ عوراتُنا ما نأتي منْها وما نذَرُ، قالَ: احفظ عورتَكَ إلَّا من زوجتِكَ أو ما ملَكت يمينُك، قالَ قلتُ: يا رسولَ اللَّهِ الرَّجلُ يَكونُ معَ الرَّجلِ قالَ: إنِ استطعتَ ألَّا يراها أحدٌ فافعل قلتُ: فالرَّجلُ يَكونُ خاليًا قالَ: اللَّهُ أحقُّ أن يُستحيا منْهُ

মুয়াবিয়া বিন হাইদা হতে বর্ণিত। একদা রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন যে, তুমি তোমার বিবি ও তোমার দাসী ছাড়া অপরের নিকট হতে তোমার লজ্জাস্থানকে সর্বদা রক্ষা কর (অর্থাৎ ঢেকে রাখবে)। আমি বললাম, ইয়া রাসূলাল্লাহ! বলুন, যদি কোন ব্যক্তি নির্জনে একাকী থাকে! (তখনও কি তা ঢেকে রাখতে হবে? প্রয়োজন ছাড়া খোলা নিষিদ্ধ?) তিনি বললেন (হ্যাঁ) আল্লাহ তাআলাকে অধিক লজ্জা করা উচিত।-তিরমিযি ২৭৬৯

উল্লেখ্য, অজু হওয়া না হওয়া বা অজু ভঙ্গের সাথে উলঙ্গ হওয়ার কোন সম্পর্ক নেই। অজুর অঙ্গ সমূহ পরিপূর্ণভাবে ধৌত হয়ে গেলে উলঙ্গ থাকলেও অজু হয়ে যাবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এজাতীয় আরও পড়ুন
©২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত| এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।
ডিজাইন কওমী ভয়েস